Daily Poribar
Bongosoft Ltd.
ঢাকা রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১

সর্বস্ব হারিয়েও রুপলাল মুচি সুখী মানুষ


দৈনিক পরিবার | এ মান্নান মার্চ ৩০, ২০২৪, ০৪:৪২ পিএম সর্বস্ব হারিয়েও রুপলাল মুচি সুখী মানুষ

রোদে বৃষ্টিতে নেই কোন একটা নির্দিষ্ট স্থান। প্রতিদিন একটি ছাতা নিয়ে বসেন। ছাতার নিচেই তার দোকান। এখানে বসেই সারাদিন জুতো সেলাই করেন। সকাল ৮টায় দোকান শুরু করে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলে তার কাজকর্ম। কারও সঙ্গে দেন না কোন আড্ডা, নিরব নিভৃতিতে নিজের কাজ করে যান তিনি। দীর্ঘ ২০ বছর ধরে চলে তার এই ব্যবসা। এই দিয়েই চলে তার সংসার। স্ত্রী, দুই ছেলে ও ছেলেদের বউ নিয়ে ছয় সদস্যের সংসার। এই ব্যবসা দিয়ে কতখানি আয় হয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা আয় হয়। ভালোভাবেই সংসার চলে তার। বাসা কোথায় জিজ্ঞেস করলে বলেন, ছাওড় ইউনিয়নের মশিদপুর হাটের রাস্তার ধারে। তার জীবনের কিছু কথা বলতে গিয়ে কেঁদে উঠেন। তারপর বলেন, আমার বাড়ি আসলে নিয়ামতপুর উপজেলার মাহমুদপুর গ্রামে। বাবার ছিল ৩৫ বিঘা সম্পত্তি। চাচাতো ভাইদের সঙ্গে যে কোন বিবাদে সমস্ত জমি বাবা বিক্রি করে ফেলেছিলেন। কোন উপায় না পেয়ে এই জুতা সেলাই করার কাজ করি। এই জুতা সেলাই করে প্রতিদিন যা আয় হয়, তা দিয়ে ভগবান ভালোই কাটিয়ে দেন। কারও কাছে হাত পাততে হয় না। তেমন কোনো ঋণ নেই। যা আয় হয় তা থেকে ব্যয় করেই সংসার চালাই।
বর্তমানে ছেলেরা কুশার পাড়া মোড়ে নাপিতের কাজ করে। রোদ হলে ছাতা ফুটায়ে বসেন ফুটপাতে, আবার বৃষ্টি হলে কিছুক্ষণের জন্য মার্কেটের বারান্দায় উঠে বসেন। বৃষ্টি চলে গেলে আবার ওই ফুটপাতে বসেন জুতো সেলাই করতে।
তিনি বলেন, ভগবানের মেহেরবানীতে ভালোই চলে আমার ঘর সংসার। পরিবার নিয়ে আমি বেশ সুখি।

Side banner