Daily Poribar
Bongosoft Ltd.
ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১২ আষাঢ় ১৪৩১

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে তিন সদস্যকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ


দৈনিক পরিবার | মোঃ সাকিব খান জুন ৬, ২০২৪, ০৬:০৩ পিএম ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে তিন সদস্যকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ

মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার শ্রীপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে তিন ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলার শিকার ইউপি সদস্যদের অভিযোগ, নির্বাচনের পর থেকেই ইউপি সদস্য হিসেবে প্রায় সকল সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করার প্রতিবাদে তাঁদের ওপর এ হামলা হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
আহত ইউপি সদস্যরা হলেন, শ্রীপুর সদর ইউপির ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুল আলিম বিশ্বাস (৫০), ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুল মজিদ (৬০) এবং ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মকবুল হোসেন (৫০)। তাঁদের শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
ভুক্তভোগী ইউপি সদস্য এবং স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইউপি নির্বাচনে ওই তিন ইউপি সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমানের বিপক্ষে নির্বাচন করেন। বিপক্ষে নির্বাচন করায় মশিয়ার রহমান চেয়ারম্যান হওয়ায় পর থেকেই ওই তিন ইউপি সদস্যকে ইউনিয়ন পরিষদের প্রায় সকল সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করে আসছে। ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচনের পর থেকেই এ বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। এই বিরোধের জেরে ইউপি চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান ও তাঁর লোকজন ওই তিন ইউপি সদস্যকে পিটিয়ে আহত করেন। একই ইউপির ওই তিন সদস্য চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করা খান তৈয়বুর রহমানের অনুসারী।
মারধরের শিকার তিন ইউপি সদস্য এবং স্থানীয় সূত্রে জানায়, প্রতিবছর ঈদে ওই ইউপি সদস্যদের ওয়ার্ডের দুস্থ লোকজনকে ভিজিএফ কার্ডের চাল দেওয়া হয়। চেয়ারম্যান নির্বাচিত ওই তিন ইউপি সদস্যদের থেকে ওই ওয়ার্ডের পরাজিত ইউপি সদস্যদের দেওয়া নামগুলোর গুরুত্ব দেন। এর প্রতিবাদ করায় চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে তাঁর লোকজন ওই তিন ইউপি সদস্যের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।
ভুক্তভোগীরা জানান, ভিজিএফ কার্ড বিতরণে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় সঙ্গে সঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান ও তাঁর লোকজন তিন ইউপি সদস্যের ওপর ধারালো অস্ত্র, হাতুড়ি ও কাঠের বাটাম দিয়ে মারধর শুরু করেন। হামলাকারীরা ইউপি সদস্যদের মারধর করে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বের করে দেন। এরপর তাঁদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তিনজনকে উদ্ধার করেন। এরপর তাঁদের শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ মোল্যা বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে আমাদের প্রায় সকল সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করে আসছে। দীর্ঘদিন ধরে আমরা চেয়ারম্যানের এ কাজের প্রতিবাদ করে আসছি। আজ আমরা তিন ইউপি সদস্য ইউনিয়ন পরিষদে যাওয়ার পর পরিকল্পিতভাবে চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে তাঁর লোকজন আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। আমরা জনপ্রতিনিধি হয়েও হামলার শিকার হয়েছি। আমরা এ ঘটনার সঠিক বিচার চাই।
এ বিষয়ে শ্রীপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিয়ার রহমান বলেন, তিন ইউপি সদস্য আমার উপর চড়াও হওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে। তারা পরিষদে আসে না বলেই সুযোগ সুবিধা পায় না।
তিন ইউপি সদস্যকে মারধরের বিষয়টি জেনেছেন বলে জানান শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ তাসমীম আলম। তবে এ বিষয়ে কোনো লিখিত অভিযোগ তিনি পাননি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া নেবেন। এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Side banner